বাড়ি বাংলাদেশ মোহাম্মদ নাসিমের কর্মময় জীবনের সংক্ষিপ্ত বর্ণনা

মোহাম্মদ নাসিমের কর্মময় জীবনের সংক্ষিপ্ত বর্ণনা

35
0

দুরন্ত নিউজ ডেস্ক : ১৯৪৮ সালের ২ এপ্রিল সিরাজগন্জের কাজীপুরে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন মোহাম্মদ নাসিম।পিতা জাতীয় ৪ নেতার একজন মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর শহীদ ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী। বাবার মত রাজনীতির প্রতি অকুন্ঠ ভালোবাসা ছিল মোহাম্মাদ নাসিমের। রাজনৈতিক অঙ্গনে তার সম্পৃক্ততা শুরু হয় ৬০ এর দশকে। তিনি ছিলেন একজন তুখর ছাত্রনেতা। পাবনার এডওয়ার্ড কলেজ হতে এইচএসসি পাশের পর ঢাকার জগন্নাথ কলেজ হতে রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রী অর্জন করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট স্বপরিবারে বঙ্গবন্ধু হত্যা এবং ৩ নং জেলহত্যার ঘটনায় পিতা শহীদ ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলীকে হারানোর পরই পুরোপুরি রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হন মোহাম্মদ নাসিম। একাধীকবার কারাবরণ করতে হয়েছে বলিষ্ঠ এই নেতাকে। ১৯৮১ সালে আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিলে যুব সম্পাদক নির্বাচিত হন তিনি। ১৯৮৭ সালে দায়িত্ব পান প্রচার সম্পাদকের। ১৯৮৬ সালে সিরাজগন্জ-১ আসন কাজীপুর হতে প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। একই আসন হতে ৫ বার জাতীয় সংসদের সদস্য নির্বাচিত হন মোহাম্মদ নাসিম। তিনি ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠনের পর স্বরাষ্ট্র,গৃহায়ণ,ডাক,তার ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী নির্বাচিত হন। ২০১৪ সালে নির্বাচিত হন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। ১৯৯২ ও ১৯৯৭ সালের জাতীয় সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পান মোহাম্মদ নাসিম। এরপর ২০১২ সালে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য নির্বাচিত হন প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন বর্ষীয়াণ এই নেতা । সবশেষ ১৪ দলের মুখপাত্র হয়ে দায়িত্ব পালন করেন । তিনি ছিলেন সিরাজগন্জ উন্নয়নের একজন কর্ণধার। আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক অঙ্গণে সারাদেশ তথা উত্তরবঙ্গে তিনি ছিলেন একজন সিংহপুরুষ। মহান এ নেতার দ্বারাই সিরাজগন্জ মনসুর আলী অডিটরিয়াম,যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র,পাসপোর্ট অফিস,হোমিও প্যাথিক কলেজ,পলিটেকনিক কলেজ,সিরাজগন্জ শহর রক্ষাবাঁধ নির্মান,শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতাল, বহু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান,স্কুল কলেজ, মাদ্রাসা,রাস্তাঘাট, ব্রীজ কালভার্ট, সেতু সহ অনেক কিছুই হয়েছে।
রাজনীতির পাশাপাশি বহু সামাজিক, সাংস্কৃতিক অঙ্গণে রেখে গেলেন বিরাট অবদান। মিডিয়ার প্রতিও ছিল তার অগাধ ভালোবাসা। যে মানুষটি দেশের মানুষের জন্য রাজনীতি করেছেন,সে মানুষটির মুত্যুর পরে দেশের মানুষ তথা সিরাজগন্জবাসী ধরে রাখতে পারছে না চোখের জল। স্ত্রী, ৩ ছেলে,আত্মীয় স্বজন সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গতকাল শনিবার বিদায় নিলেন বর্ষীয়াণ নেতা মোহাম্মদ নাসিম। ( ইন্না লিল্লাহি,,,,,রাজিউন) । আমরা সবাই দোয়া করব,আল্লাহ পাক যেন তাকে বেহেস্ত নসীব করেন এবং শোক সন্তপ্ন পরিবারের প্রতি জানাই গভীর সমবেদনা। আল্লাহ যেন পরিবারের সবাইকে ধৈর্য ধারন করার শক্তি দান করেন। আমিন,,,

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে